কোহলিদের সামনে একা লড়লেন রাহুল

ক্রিস গেইল একটু সঙ্গ দিয়েছিলেন। সেই গেইলও ১০ ওভার পার হতেই ড্রেসিংরুমে ফিরে গেছেন। এরপর শুধু সঙ্গীদের উইকেটে হাজিরা দিতে দেখেছেন। নিকলাস পুরান, দীপক হুদা বা শাহরুখ খানরা শুধু এসেছেন, বল নষ্ট করেছেন আর ফিরে গেছেন।

সতীর্থদের এমন ব্যর্থতা লোকেশ রাহুলের কষ্ট বাড়িয়েছে শুধু। একদিকে দলের নেতৃত্ব, অন্যদিকে দলের ইনিংস উদ্বোধন—দুই ধরনের চাপ সামলাতে হয় রাহুলকে। তা সামলেও গত বছর দলের সিংহভাগ রান এনে দিয়েছিলেন। এবার তো এখন পর্যন্ত আইপিএলেরই সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।

আজ শিখর ধাওয়ানকে টপকে যেতে আরেকটি অধিনায়কোচিত ইনিংস খেললেন রাহুল। ৫৭ বলে ৯১ রানের দুর্দান্ত সে ইনিংসেই রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৯ রান তুলেছে পাঞ্জাব কিংস।
গত সপ্তাহে চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ইনিংসের শেষ ওভার করতে এসেছিলেন হর্শল প্যাটেল। সেদিন তাঁর ওভারে পাঁচ ছক্কাসহ ৩৭ রান তুলেছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা। এ কারণে পরের ম্যাচে ২০তম ওভারে আর তাঁর হাতে বল দেননি কোহলি। আজ পাঞ্জাবের বিপক্ষে আবার ২০তম ওভার করতে দেওয়া হলো তাঁকে।

প্রথম বলে হারপ্রীত ব্রার এক রান নিলেন। পরের তিন বলে দুই চার ও এক ছক্কায় ১৪ রান তুলে নিলেন লোকেশ রাহুল। ৫৬ বলে ৯০ রান হয়ে গেল রাহুলের। শেষ দুই বলে এক চার আর এক ছক্কা হলেই এ মৌসুমে তাঁর প্রথম সেঞ্চুরি পেয়ে যেতেন। কিন্তু পঞ্চম বলে মাত্র এক রানই হলো। শেষ বলটা ব্রার স্কয়ার লেগ দিয়ে সীমানার বাইরে আছড়ে ফেললেন। আবারও শেষ ওভারে এসে অকৃপণভাবে রান (২২) বিলিয়ে এলেন হর্শল।

হর্শলের ওভারের আগ পর্যন্ত মনে হচ্ছিল রাহুলের ইনিংসটা ব্যর্থ লড়াই বলে বিবেচিত হবে। চতুর্থ ওভারে প্রভসিমরাম সিং ফিরে গিয়েছিলেন, তাতে পাঞ্জাবের অবশ্য লাভই হয়েছিল। একদিকে রাহুল আর অন্যদিকে গেইল ঝড় তুলেছিলেন। দুজনের ৪৫ বলের জুটিতে এসেছে ৮০ রান। ডেনিয়েল স্যামসের বলে ধসের শুরু।

রাহুলের ইনিংসটাই দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছে কোহলির।
রাহুলের ইনিংসটাই দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছে কোহলির।প্রথমে ২৪ বলে ৪৬ রান করা গেইল ফিরেছেন। ৬ চার ও ২ ছক্কা মারা গেইল যখন ফিরছেন, দলের রান তখন ৯৯। পরের ২৪ বলে রীতিমতো ঝড় বয়ে গেল পাঞ্জাব ইনিংসে। রাহুল এক প্রান্তে একটু-আধটু রান তুলেছেন, কিন্তু অন্যদিকে পুরান, হুদা ও শাহরুখ মিলে ১৫ বলে মাত্র ৫ রান যোগ করেই বিদায় নিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে পুরান ও শাহরুখ ফিরেছেন শূন্য রানে। এর মধ্যে পুরানের নামটি আলাদাভাবে উল্লেখ করাই যায়।

এই আইপিএলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ব্যাটসম্যান শূন্য বল, এক বল ও দুই বলে শূন্য রানে আউট হয়েছেন আগেই। আজ সে ধারাটা আরেকটি জমকালো করে তুললেন তৃতীয় বলে আউট হয়ে!

১১৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলা পাঞ্জাব অলআউটের শঙ্কায় ছিল। একদিকে ৫৬ রান করা রাহুল ছিলেন, কিন্তু অন্য প্রান্তে কাউকে তো সঙ্গ দিতে হবে! হারপ্রীত ব্রার সেটাই করলেন। রাহুলের সঙ্গী হয়ে ৬১ রান এনে দিয়েছেন। ১৭ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ২৫ রান করেছেন।

Check Also

জার্মানির কাছে হারল পর্তুগাল রোনালদোর গোলেও হলো না রক্ষা,

জার্মান কোচ জোয়াকিম লো চাইলে বলতেই পারেন, আমার হাজারটা সমস্যা থাকলেও পর্তুগালকে হারানো তার মধ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
www.jagrotojanata.com want to
Show notifications for the latest News&Updates