সম্মুখসারির যোদ্ধা হিসেবে টিকা পাচ্ছেন ‘পাঠাও’ কর্মীরা

1 week ago 8

কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির এই সময়ে দেশের সর্ববৃহৎ ডিজিটাল সার্ভিস প্ল্যাটফর্ম ‘পাঠাও’ প্রায় এক হাজার সেবা প্রদানকারীকে করোনা টিকার আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে। ‘পাঠাও’র ফ্রন্টলাইনার বা সম্মুখসারির এসব যোদ্ধাকে করোনা টিকা দেওয়ায় সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ সরকারের এটুআই প্রোগ্রামের ‘একশপ’।

বুধবার (৭ এপ্রিল) রাজধানীর ‘পাঠাও’ অফিসে প্ল্যাটফর্মটির ফুড ও কুরিয়ার সার্ভিসে সেবা প্রদানকারী করোনাযোদ্ধাদের টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা হয়। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানায় পাঠাও।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা মহামারি শুরুর পর হতেই যথাযথ স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা মেনে নিত্যপ্রয়োজনীয় ও জরুরি পণ্য গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে কাজ করে যাচ্ছে ‘পাঠাও’ ও অন্যান্য ই-কমার্স খাতের সম্মুখসারির সেবাদাতারা। তাই ইতোমধ্যে সরকার ই-কমার্সকে জরুরি সেবার আওতাভুক্তও করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ফ্রন্টলাইনারদের স্বাস্থ্যের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ৬ হাজার ই-কমার্স কর্মীকে টিকা রেজিস্ট্রেশনের জন্য অনুমতি দিয়েছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের স্বাস্থ্য তথ্য ইউনিট প্রধান ডা. শাহ আলি আকবর আশরাফী বলেন, ‘মহামারিতে মানুষের জরুরি প্রয়োজনে ই-কমার্স খাতের কর্মীরা ঘরে ঘরে পণ্য পৌঁছে দিচ্ছেন। তাদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তার কথা ভেবে এটুআই’র উদ্যোগে ই-কমার্স খাতের কর্মীদের কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ‘সুরক্ষা’ ওয়েব পোর্টালে নিবন্ধনের মাধ্যমে তারা টিকা নিতে পারবেন। এই উদ্যোগ ই-কমার্স খাতকে আরও গতিশীল করবে।’

পাঠাও জানায়, লকডাউন চলাকালে ঢাকাসহ দেশের সব সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত গণপরিবহন চালুর সরকারি সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে ‘পাঠাও’। তাই আজ থেকে নির্দেশনা মেনে সংশ্লিষ্ট এলাকায় চালু রয়েছে পাঠাও’র ‘কার’ সার্ভিস। গণপরিবহন সেবায় দেশের সর্ববৃহৎ ডিজিটাল সার্ভিস প্ল্যাটফর্ম ‘পাঠাও’ মনে করে, করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে অবশ্যই আমাদের সবাইকে দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে ও মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্য বিধিসহ অন্যান্য সুরক্ষা ব্যবস্থা।

Read Entire Article